কুড়িগ্রামে ২ সমবায় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা।

ইয়াছিন আলী ইমন
কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

টাকা আত্মসাতের অভিযোগে রংপুর জেলা সমবায় কার্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন- দুদক।বুধবার বিকালে দুদকের কুড়িগ্রাম জেলা কার্যালয়ে সংস্থাটির রংপুরের সহকারী পরিচালক হোসেন শরীফ মামলাটি করেন বলে কুড়িগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান।মামলার আসামিরা হলেন রংপুর সমবায় কার্যালয়ের উপসহকারী নিবন্ধক রোজিনা সুলতানা (৪৩) ও একই কার্যালয়ের সাবেক বিভাগীয় যুগ্মনিবন্ধক আমির হামজা (৬১)।তাদের বিরুদ্ধে প্রায় এক কোটি টাকা আত্মসাতের চেষ্টা এবং ২৩ লাখ টাকা আত্মসাত করার অভিযোগ আনা হয়।মামলার নথির বরাতে জাহাঙ্গীর আলম জানান, ২০১৮ সালের ৭ মে রূপালী ব্যাংক থেকে এক কোটি টাকার একটি চেক জেলা সমবায় কার্যালয়ের হিসাব নম্বরে কুড়িগ্রাম সোনালী ব্যাংক শাখায় জমা হয়। এর চার মাস পর ওই বছরের ৯ সেপ্টেম্বর আসামি রোজিনা সুলতানা প্রথমে ২০ লাখ টাকা তোলেন। পরে আরো পাঁচটি চেকের মাধ্যমে ব্যাংকে মাত্র এক হাজার টাকা রেখে বাকি টাকাও তোলেন।এরপর তিনি সোনালী ব্যাংকে তার ব্যক্তিগত একাউন্টে ওই বছরের ৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তিনটি চেকে ৭৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকা জমা দেন। ওইসব টাকা আরিফুল ইসলাম ও সাজেদুর রহমান নামে দুই ব্যক্তি বিভিন্ন চেকের মাধ্যমে তুলে নেন।বিষয়টি জানাজানি হলে রোজিনা সুলতানা ২০১৯ সালের ৮ জুলাই থেকে ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে আটটি চেকের মাধ্যমে ৯৯ লাখ ৯৯ হাজার টাকা আবার সোনালী ব্যাংক জেলা শাখার সমবায় কার্যালয়ের একাউন্টে জমা দেন।মামলার এজাহারে বলা হয়, রোজিনা সুলতানা ভুল পোস্টিংয়ের মাধ্যমে সরকারের টাকা আত্মসাতের উদ্দেশ্যে নিজ হিসাব নম্বরে জমা দেন। তার এ কাজে রংপুর সমবায় কার্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত বিভাগীয় যুগ্মনিবন্ধক আমির হামজা উৎসাহ দেন এবং ওই টাকা থেকে ২৫ লাখ টাকা নেন। টাকা ফেরত চাইলে আমির হামজা মাত্র ২ লাখ দিয়ে বাকি ২৩ লাখ টাকা আত্মসাত করেন।
দুদকের কুড়িগ্রাম সমন্বিত কার্যালয় থেকে মামলাটির তদন্ত চলবে বলে জানান কার্যালয়ের উপপরিচালক জাহাঙ্গীর আলম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.