গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ স্বামী আটক

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে সাজনা বেগম (৪২) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। নিহত ওই গৃহবধূ ছাতক উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের বাউভোগলী গ্রামের মৃত আছদ্দর আলীর কন্যা। সোমবার দুপুরে তার লাশ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এই ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী সুলতান মিয়া স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযেগে রোববার রাতে আটক করেছে দোয়ারাবাজার থানা পুলিশ।
রোববার বিকেলে চিকিৎসাধিন অবস্থায় সিলেটের একটি প্রাইভেট হাসপাতালে সাজনা বেগমের মৃত্যু হয়। স্ত্রীর মৃত্যুর পর সাজনার পরিবারের অভিযোগে স্বামীকে আটক করে পুলিশ। নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৭ বছর পূর্বে দোয়ারাবাজার উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের বালিউরা এলাকার পুর্কারগাঁও গ্রামের মৃত আবদুল গফুরের ছেলে সুলতান মিয়ার সাথে সাজনার বিয়ে হয়। তাদের তিন সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে সাজনাকে নির্যাতন করে আসছিল স্বামীসহ তার পরিবার। যৌতুকের টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকত। তার পরও স্বামীর বাড়ির লোকজনের নির্যাতন সহ্য করে আসছিলেন ওই গৃহবধূ। গত বুধবার রাতে পিতার বাড়ি থেকে টাকা এনে দিতে গৃহবধূকে চাঁপ দেয় তার স্বামী। এক পর্যায় অপারগতা প্রকাশ করলে তার উপর চালানো হয় নির্যাতন। ওইদিন তাকে প্রথমে ছাতক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য সাজনা বেগমকে সিলেটে পাঠানো হয়। রোববার ভোর সকালে অপারেশন শেষে উইমেন্স মেডিক্যালের আইসিইউ রেফার্ড করা হলে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে মৃত্যু হয় ওই গৃহবধুর। এদিকে, স্ত্রীর মৃত্যুর খবর পেয়ে স্বামী সুলতান মিয়া হাসপাতাল থেকে পালানোর সময় নিহতের স্বজনরা তাকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।
দোয়ারাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেব দুলাল ধর অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এবিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.