মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে শশুর শাশুড়ির সহযোগিতায় গৃহবধূর মুখ পুড়িয়ে দিলেন দেবর

মোঃ নূরুল ইসলাম, দৌলতপুর মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে শ্বশুর শাশুড়ি সহযোগিতায় গৃহবধুর মুখ পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে দেবরের বিরুদ্ধে।

জানাগেছে, রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার জিয়নপুর ইউনিয়নের নারান্দিয়া খা-পাড়া এলাকার রুবেল শেখের গর্ভবতী স্ত্রী সুমি আক্তার (২২) কে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শশুর শাশুড়ির সহযোগিতায় দেবর জুয়েল শেখ গরম তরকারির পাতিলে মুখ চেপে ধরলে তাৎক্ষণিক সম্পূর্ণ মুখ পুড়ে যায়। খবর পেয়ে সুমি আক্তারের বাবা আকুমুদ্দিন তাকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় দৌলতপুর ৫০শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ঘটনার ব্যাপারে গুরুতর অসুস্থ সুমি আক্তার জানান, বিদ্যুৎ না থাকায় ফ্রিজ থেকে মাংস বের করাকে কেন্দ্র করে শাশুড়ি রোকিয়া বেগম, শশুর শুকুর আলী এবং দেবরের স্ত্রী সুমির সহযোগিতায় হত্যার উদ্দেশ্যে দেবর জুয়েল শেখ আমাকে রান্নারত অবস্থায় গরম তরকারির পাতিলে চেপে ধরলে একপর্যায়ে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি তারপরের ঘটনা আমার জানা নেই। সুমি আক্তারের বাবা আকুমুদ্দিন জানান খবর পেয়ে রাতেই আমার মেয়েকে উদ্ধার করে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় চিকিৎসার জন্য আমি দৌলতপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছি।

দৌলতপুর উপজেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ ফেরদৌস মাহমুদ খান জানান সুমির মুখের ফেস সম্পূর্ণ অংশ পুড়ে গেছে তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড করা হবে।

খবর পেয়ে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইমরুল হাসান অসুস্থ সুমি আক্তারকে হাসপাতালে দেখতে যান এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহযোগিতা করেন।

এ বিষয়ে দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জাকারিয়া হোসেন জানান ঘটনার ব্যাপারে অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.