দুর্গাপুরে সন্ত্রাসী হামলায় আহত সাবেক চেয়ারম্যানের মৃত্যু

রফিকুল ইসলাম, দুর্গাপুর প্রতিনিধি

নেত্রকোনার দুর্গাপুরের হামলায় আহত কুল্লাগড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও আদিবাসী নেতা সুব্রত সাংমা (৪৮) মারা গেছেন। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শিবিরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে শোকের ছায়া নেমে আসে। পরে সুব্রত সাংমার সর্মথকরা দুপুরে পৌর শহরের উৎরাইল বাজারে ট্রায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে। এতে গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

সুব্রত সাংমা এবার ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়ে পরাজিত হন। এর আগে তিনি নৌকার চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি কুল্লাগড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ছিলেন। তিনি সাবেক সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী প্রয়াত প্রমোদ মানকিনের ভাতিজা।

সুব্রতর বোন কেয়া তজু জানান, গত ২৯ সেপ্টেম্বর বিকেলে কুল্লাগড়া ইউনিয়নের রাশিমনি বাজারে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান ও দুর্গাপুর উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব আবদুল আওয়ালের নেতৃত্বে সুব্রত সাংমার ওপর হামলা চালায় । স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। ঘটনার পরদিন রাতে কেয়া তজু বাদী হয়ে দুর্গাপুর থানায় একটি মামলা দায়ে করেন। মামলায় চেয়ারম্যানসহ তার ভাই শামিম আহমেদ, মো. বদিউজ্জামানসহ ১৫ জনের নাম উল্লখ করা হয়। তবে পুলিশ মামলার কোন আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। পরে তারা আদালত থেকে জামিনও পায়।

এদিকে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে গত ১ অক্টোবর দুপুরে শ্যামগঞ্জ-বিরিশিরি সড়কের দুর্গাপুর পৌরসভার উতরাইল বাজার এলাকায় বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠন (বাগাছাস), ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ও এলাকাবাসীর ব্যানারে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

দুর্গাপুর থানার ওসি মোহাম্মদ শিবিরুল ইসলাম বলেন, ‘সুব্রত সাংমার মৃত্যুর খবরে এলাকায় কিছুটা উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। আমরা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *