রাজশাহীতে ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও র‌্যালী

মোঃমাসুদ আলম, ব্যুরো চীফ

মানবজাতির জন্য রহমত হিসেবে প্রেরিত মহানবী হযরত মুহম্মদ (সা.) এর শুভ আবির্ভাবের দিন।

এ দিনটি মুসলিম উম্মাহর কাছে পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (সা.) নামে পরিচিত। ৫৭০ সালের এই দিনে আরবের মক্কা নগরীর সভ্রান্ত কুরাইশ বংশে মা আমিনার কোল আলো করে জন্ম নিয়েছিলেন বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)।

এক সময় গোটা আরব অন্ধকারে নিমজ্জিত ছিল। তারা আল্লাহকে ভুলে গিয়ে নানা অপকর্মে লিপ্ত হয়ে পড়েছিল। আরবের সর্বত্র দেখা দিয়েছিল অরাজকতা ও বিশৃঙ্খলা। এ যুগকে বলা হতো আইয়ামে জাহেলিয়াত।

তখন মানুষ হানাহানি ও কাটাকাটিতে লিপ্ত ছিল এবং করত মূর্তিপূজা। এই অন্ধকার যুগ থেকে মানবকুলের মুক্তিসহ তাদের আলোর পথ দেখাতে মহান আল্লাহতাআলা রাসুলুল্লাহ (সা.) প্রেরণ করেন এই ধরাধমে।

পবিত্র কোরআনে বর্ণিত আছে, ‘মহানবীকে সৃষ্টি না করলে আল্লাহ রাব্বুল আলামিন পৃথিবীই সৃষ্টি করতেন না’। এসব কারণে এবং তৎকালীন আরব জাহানের বাস্তবতায় এ দিনের গুরুত্ব ও তাৎপর্য অনেক বেশি। বাংলাদেশসহ বিশ্ব মুসলিম সম্প্রদায় এ দিনটি ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) হিসেবে উদযাপন করে থাকে।তারাই ধারাবাহিকতায় আজ রাজশাহীতে ভাবগাম্ভির্য ও জাঁকজমক ভাবে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) পালন করা হয়। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর শুভ আগমন উপলক্ষে ১২ই রবিউল আওয়াল রোববার (৯ অক্টোবার ) সকাল ৯ টার দিকে রাজশাহী নগরীর শিরইল কলোনীর বায়তুল মামুর জামে মসজিদ থেকে প্রতি বছরের মতই এবারো রাজশাহী মহানগর গাউছিয়া কমিটির উদ্যোগে জশনে জলুস ধর্মীয় র‌্যালী বের করা হয়।

র‌্যালীটি শিরইল কলোনী ৪নং গলির শেষ মাথায় বায়তুল মামুর জামে মসজিদ প্রঙ্গন থেকে বের হয়ে দরগাপাড়া হযরত শাহ মখদুম (রাঃ) এর মাজারে চাদরপুসি,পুস্পস্তবক অর্পন ও মাজার জিয়ারত করে সমগ্র মুসলিম উম্মার এবং দেশ ও জাতির জন্য শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

মোনাজাত পরিচালনা করেন শিরইল কলোনী বায়তুল মামুর জামে মসজিদের সম্মানিত খতিব মৌলানা আতাউল মোস্তাফা কাদেরী। র‌্যালী শেষে মসজিদে ফিরে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া করে প্রায় পাঁচ হাজার প্যাকেট তাবারুক বিতরন করা হয় ।

এসময় গাউছিয়া কমিটির সভাপতি ড: শরিফুল ইসলাম,সহ-সভাপতি জাহিদ হোসেন মুন্না, সাধারন সম্পাদক রবিউল ইসলাম রবি, এবং উদযাপন কমিটির আহব্বায়ক ডা:শাহিদ আলীসহ সাহজাহান আলী, খালেদ হোসেন ভোলা,আজাহার আলীমুন্না জমসেদ আলী,আসলাম,নজরুল কাওশার সালাহ উদ্দিন প্রমুখ ,এর পক্ষ থেকে নবী ও রাসুলের প্রেমীকদেরকে আনন্দ র‌্যালীতে এসে দিনটি উদযাপনে সহযোগিতা করা, আইনশৃংখলা বাহিনীর শৃংখলা রক্ষায় সহযোগিতা করায় এবং অনুষ্ঠানটি প্রচার করার জন জন্য সাংবাদিকরদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *