মাগুরা জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের সতন্ত্র প্রার্থী জেল হাজতে,

মাগুরা জেলা প্রতিনিধিঃ কিশোর কুমার দাস,

মাগুরা জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের স্বতন্ত্র প্রার্থী শরিয়ত উল্লাহ রাজন এবং সহোদর স্থানীয় শ্রীকোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কুতুবুল্লাহ হোসেন কুটিকে মঙ্গলবার জেল হাজতে পাঠিয়েছে আদালত।

মাগুরা জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ কুমার কুন্ডু। তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মাগুরার শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আকবর হোসেনের ছেলে সাবেক ছাত্রলীগ কর্মী শরিয়ত উল্লাহ রাজন এবং একই উপজেলার সাবেক ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক জিহাদ মিয়া।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২৩ আগস্ট রাতে মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার ছোনগাছা গ্রামে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন ওই উপজেলার শ্রীকোল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য চাঁদ আলি সরদার এবং তার সহোদর মসিদুল সরদার, ওবায়দুল সরদার ও বাচ্চু সরদার। এ ঘটনায় কুতুবুল্লাহ হোসেন কুটি ও ছোট ভাই শরিয়ত উল্লাহ হোসেন রাজনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। ৩১ আগস্ট এ মামলায় তারা উচ্চ আদালত থেকে ৬ সপ্তাহের জামিনপ্রাপ্ত হয়। মঙ্গলবার ছিল জামিনের নির্ধারিত সময়ের শেষদিন। বিধায় তারা নতুন করে জামিনের আবেদন করে আদালতে হাজির হন। কিন্তু মাগুরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক কামরুল হাসান তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালতে এ মামলায় জামিন শুনানিকালে আসামী পক্ষের আইনজীবী হিসেবে এজলাসে উপস্থিত ছিলেন শফিকুজ্জামান বাচ্চু, রোকনুজ্জামান খান এবং অজয় কুমার বিশ্বাস। নির্বাচনের আগে জেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী শরিয়ত উল্লাহ হোসেন রাজন এবং সহোদর ইউপি চেয়ারম্যান কুতুবুল্লাহ হোসেন কুটির জামিন আবেদন নামঞ্জুরের বিষয়ে সাংবাদিকরা কথা বলতে চাইলে রহস্যজনক কারণে তারা কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি।

তবে সরকার পক্ষের আইনজীবী সাজিদুর রহমান সংগ্রাম বলেন, আসামী পক্ষের আইনজীবীরা জামিন প্রার্থনা করলেও বিজ্ঞ বিচারক শুনানী শেষে জামিন না মঞ্জুর করে তাদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *