দেশে করোনাভাইরাস সহনীয় পর্যায় আসলেও দেশজুড়ে হানা দিয়েছে ডেঙ্গু : সিটি মেয়র

বিপ্লব সাহা খুলনা ব্যুরো চীফ :

চিকিৎসা বিজ্ঞানের অক্লান্ত পরিশ্রম ও সরকারের উদ্যোগে বিভিন্ন দেশ থেকে ভ্যাকসিন আমদানি করে সাধারণ মানুষদের করোণা ভ্যাকসিন প্রয়োগ করে অদৃশ্য মহামারি প্রতিরোধের মাধ্যো দিয়ে সহনীয় পর্যায়ে আনতে সক্ষম হলেও।
দেশজুড়ে হানা দিয়েছে ডেঙ্গু।

এ বিষয়ে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে কেসিসির সংশ্লিষ্ট বিভাগ সমূহকে সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। দেশের করোনাভাইরাস স্তিমিত হয়ে আসলেও ডেঙ্গু সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। সে কারণে সংশ্লিষ্ট সকলকে ডেঙ্গু প্রতিরোধের নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। তিনি বলেন খুলনা কে সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন শহর হিসেবে গড়ে তুলতে আমরা অঙ্গীকারাবদ্ধ। এজন্য স্বাস্থ্য ও কঞ্জারভেন্সি বিভাগের রুটিন কাজের পাশাপাশি কর্মকর্তা কর্মচারীদের বাড়তি কাজ করার নির্দেশ দেন।

সিটি মেয়র নগর ভবনের শহীদ আলতাব মিলনায়তনে করোনা ও ডেঙ্গু প্রতিরোধ কল্পে চলমান মসক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান জোরদার করণের লক্ষ্যে এসএসসির স্বাস্থ্য ও কনজারভেন্সি বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সাথে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

কেসিসির বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় স্থায়ী কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর এসএম খুরশিদ আহমেদ টোনা কাউন্সিলর শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স কাজী তালাত হোসেন
কাউট মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান ইমাম হাসান চৌধুরী ময়না সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর পারভিন আক্তার শাহিদা বেগম প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ( যুগ্মসচিব) লস্কর তাজুল ইসলাম প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল আজিজ প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার স্বপন কুমার হালদার স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার শরীফ সাম্মিউল ইসলাম কঞ্জারভেন্সি অফিসার মোঃ আনিসুর রহমান সহকারী কনজারভেন্সি অফিসার মোঃ আব্দুর রকিব নুরুন্নাহার এ্যানি মোল্লা ফারুক রশিদ শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান সহ কনজারভেন্সি বিভাগের সুপারভাইজারগন সভায় উপস্থিত ছিলেন ।
এদিকে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক নগর ভবনের জিআই জেড দেমিলনায়তনে নগর পর্যায়ে বহুখাতা ভিত্তিক পুষ্টি সমন্বয় কমিটির ৪র্থ ত্রৈমাসিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন (এলআইইউপিসি) প্রকল্পের সহযোগিতায় কেসিসির স্বাস্থ্য বিভাগের সভার আয়োজন করে।

উল্লেখ্য নগরীতে বসবাসরত সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর মধ্য দক্ষ ও কার্যকর পুষ্টি পরিষেবা নিশ্চিত করার জন্য স্বাস্থ্য ও পুষ্টি পরিষেবা প্রদানকারী এবং স্টক হোল্ডারদের মধ্যো সমন্বয় জোরদার করা এবং জাতীয় পুষ্টি নির্দেশিকা অনুসরণ করে জাতীয় পুষ্টি পরিষেবার অপরিহার্য প্যাকেজ গুলোকে মূলধারায় আনতে সহায়তা করার লক্ষ্যে ২০২১ সালের মার্চ মাসে মাল্টিস সেক্টরাল কো অর্ডিনেশন কমিটি গঠন করা হয়।
ইতোমধ্য বহুখাত ভিত্তিক পুষ্টিকর্ম পরিকল্পনা সম্পর্কিত খসড়া তৈরি করা হয়েছে। সভায় সিটি মেয়র গৃহীত কর্মপরিকল্পনা সমূহ বাস্তবায়নের সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

কেসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার স্বপন কুমার হালদার এর সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন প্রধান নির্বাহী কর্মকতা ( যুগ্মসচিব ) লস্কার তাজুল ইসলাম ও সচিব মোহাম্মদ আজমুল হক। এবং মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক হাসনা হেনা জেলা তথ্য অফিসের পরিচালক গাজী জাকির হোসেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা জয়দেব পাল জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ রাশেদুল বসির খান সিভিল সার্জন এর প্রতিনিধি ডাক্তার রানা কুমার বিশ্বাস জেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের ভিটেরিনারী সার্জন ডাক্তার শামসুল আরফিনসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিগণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *