আজ খুলনায় শত ভাগ পরীক্ষার্থীর উপস্থিতিতে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয়েছে

বিপ্লব সাহা খুলনা ব্যুরো চীফ :

দীর্ঘ দুই বছর প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে আজ ৬ নভেম্বর রবিবার এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হয়েছে।
এতে সকল পরীক্ষার্থীদের মধ্য এক উল্লাস উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গিয়ছে।

আজকে এইচএসসি পরীক্ষার
বাংলা প্রথম পত্র দিয়ে শুরু হয়।
এতে দেশের মোট ৯ টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড মাদ্রাসা ও কারিগরী শিক্ষা বোর্ডের অধিনে ১২ লাখের কিছু বেশী পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেছে।
যা আগামী ১৩ ডিসেম্বর এইচএসসি তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ হবে। এবং ব্যবহারিক পরীক্ষা শুরু হবে ১৫ ডিসেম্বর যা শেষ হবে ২২ ডিসেম্বর । এবার ১২ লাখ ৩ হাজার ৪৭ জন পরীক্ষার্থী মধ্য ছাত্র রয়েছে ৬ লাখ ২২ হাজার ৭৯৬ জন এবং ছাত্রী ৫ লাখ ৮৮ হাজার ৬১১ জন। এবার মোট ২ লাখ ৬৪৯ টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিতব্য এই পরীক্ষায় ৯ হাজার ১শ ৮১ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নিয়েছে।

সকল শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশনায় বলা হয়েছে পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। অনিবার্য কারণে কোন পরীক্ষার্থীকে নির্ধারিত সময় পার হওয়ার পরে প্রবেশ করতে দিলে তাদের নাম রোল নম্বর প্রবেশের সময় বিলম্ব হওয়ার কারণ ইত্যাদি একটি রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ করে ঐদিন সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডে পাঠাতে হবে। এছাড়া পরীক্ষা কেন্দ্রে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছাড়া অন্য কেউ মোবাইল ফোন বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছবি তোলা যায় না এমন মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। এবং পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট ছাড়া অন্য কেউ কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে না।

এবার এইচ এস সি পরীক্ষা শুরু হয়েছে বেলা ১১ টায় শেষ হয়েছে
নির্ধারিত সময় ১টায়।
এর আগে আজ পরীক্ষার প্রথম দিন হওয়াতে সকল পরীক্ষার্থীরা সকালে সকালে পরীক্ষা কেন্দ্রে এসে উপস্থিত হয়েছে।
কারণ যথাসময়ে উপস্থিত না হলে কেন্দ্রে আসন খুঁজে বের করা ও একটা সময়ের ব্যাপার।
তাই আমরা আজ সকালে সকালেই বেরিয়েছি পরীক্ষা দেওয়ার উদ্দেশ্যে।
তবে খুবই ভালো লাগছে যথা সময় আজকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পেরে।
বলেছে খুলনা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের পরীক্ষার্থী রুদ্র সাহা ( বিপ্র )।

পাশাপাশি সকল এইচ এস সি ও সমমানের অন্যন্য সকল পরীক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন খুলনা জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার এবং খুলনা সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক ও পুলিশ কমিশনার মাসুদুর রহমান ভূইয়া।
সাথে পুলিশ কমিশনারের দেওয়া কিছু বিধি-নিষেধ পরীক্ষা কেন্দ্রে জারি করেছে। সে সকল বিধি নিষেধগুলো নিম্নে বর্ণিত করা হয়েছে।

এদিকে পরীক্ষা শুরু হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যো খুলনার সকল সরকারি বেসরকারি কলেজ গুলো সরজমিনে প্রদক্ষিণ করেছেন বিভাগীয় শিক্ষা অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন সকল কর্মকর্তাগণ।
এবং তানারা গণমাধ্যম কর্মীদের বলেছেন গত দুই বছর বিশ্ব ব্যাপী অদৃশ্য মহামারী করোনা থাকার কারনে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়।
জারকারনে সকল শিক্ষার্থীদের শিক্ষার গতিপথ স্থম্ভিত হয়ে গেল দুই বছর যথাসময়ে পরীক্ষা না হওয়াতে শিক্ষার্থীদের মনবল লেখাপড়ার অবস্থা অনেকাংশেই এলোমেলো হয়ে গিয়েছিল।

খুলনা শিক্ষা অফিসার আরো বলেন
যার কারনে এবার আমরা ৫০ মার্কের পরীক্ষার প্রস্তুুতি নিয়েছি।
এবং শিক্ষার মান ধরে রাখার ক্ষেত্রে
পাশের হার ও যথাযথভাবে সমন্বয় করা হবে।
সঠিক মেধারমান উন্মোচন করার লক্ষে শিক্ষামন্ত্রী এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এদিকে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার নানান বিধি নিষেধের মধ্যো দিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রগুলির কড়া নজরদারি রাখার নির্দেশ দিয়েছেন সকল মহলের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের।

বিধি নিষেধগুলোর মধ্য রয়েছে পরীক্ষা কেন্দ্র ২০০ গজের মধ্য দলবদ্ধভাবে ঘোরাফেরা ও যটলা সৃষ্টি করতে পারবেনা।
কোন ধরনের অস্ত্র নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রের আশপাশ দিয়ে কেউ ঘোরাফেরা করতে পারবেনা।
পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ গাছের ভিতরে ও আশপাশ দিয়ে উচ্চ শব্দে কোন বাদ্যযন্ত্র বাজানো যাবে না।
এবং কোন প্রকার বিস্ফোরক ও দাহ্য পদার্থ নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রের বেশ কিছু এলাকা জুড়ে প্রবেশ করতে পারবে না।
এ সকল বিধি নিষেধ অমান্য কারীদের বিরুদ্ধে রয়েছে কঠিন আইনানোগ ব্যবস্থা।

আজ সকাল থেকেই সরজমিনে খুলনার সকল পরীক্ষার কেন্দ্র গুলিতে ঘুরে দেখা যায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশ।
এবং যথা সময় পরীক্ষা শেষে পরীক্ষার্থীদের তথ্য অনুসন্ধান থেকে জানা গিয়েছে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র খুব সুন্দর হয়েছে।
শিক্ষার্থীরা এটাও বলেছে এবার পরীক্ষার হলে আমাদের জন্য যথাযথভাবে হেল্পফুল ব্যবস্থা ছিল।
আমরা সহজ শান্তিপূর্ণ পরিবেশের মাধ্যমে পরীক্ষা দিতে পেরেছি।
আশা করি বাকি পরীক্ষাগুলো সুন্দর ও ভালোভাবে দিতে পারব।

আজকের পরীক্ষার প্রথম দিনে কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি ।
সুষ্ঠ্য ও শান্তীপূর্ণ ভাবে সমাপ্তি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *