কুড়িগ্রামে শীতের সঙ্গে বাড়ছে ‘মৌসুমি’ রোগ।

ইয়াছিন আলী ইমন
কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামে ধীরে ধীরে বাড়ছে শীতের প্রকোপ। সেই সঙ্গে বাড়ছে শীতজনিত নানা রোগ। কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ডায়রিয়া ও শ্বাসকষ্ট রোগীর ভিড় বাড়ছে দিনে দিনে। বিশেষ করে শিশুরা ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে বেশি। শয্যাসংখ্যার দ্বিগুণের বেশি রোগী ভর্তি হওয়ায় অনেকের ঠাঁই মিলছে মেঝেতে।মঙ্গলবার দুপুরে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ডায়রিয়া ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, ১০ শয্যাবিশিষ্ট এই ওয়ার্ডে ২৬ জন রোগী ভর্তি রয়েছে। যার মধ্যে ১৯ জনই শিশু। শয্যা সংকটের কারণে অনেকেই শিশুদের নিয়ে ঠাণ্ডায় মেঝেতে আছেন অভিভাবকরা।
আউটডোরে গিয়ে দেখা যায়, চিকিৎসকদের রুম ও ওষুধ বিতরণ কেন্দ্রে দীর্ঘ লাইন। যার বেশির ভাগই নারী ও শিশু।চিকিৎসকরা জানান, দিনে গরম, রাতে ঠাণ্ডা এমন বৈরী আবহাওয়ার পর হঠাৎ ঘন কুয়াশার কারণে শিশু ও বৃদ্ধরা ঠাণ্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে বেশি। দিনে দিনে রোগীর ভিড় বাড়ায় চিকিৎসা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে।কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. শাহিনুর রহমান সরদার জানান, কুড়িগ্রামে ইতিমধ্যে শীতের আমেজ শুরু হয়েছে। তাই শীতজনিত ডায়রিয়া, শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন রোগের প্রকোপজনিত কারণে হাসপাতালে আগের চেয়ে অনেক বেশি রোগী আসছে। তবে সীমিত জনবলসহ নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে রোগীদের।রবিবার সকালে জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৬ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। আগামী ৭২ ঘণ্টা আবহাওয়া অপরিবর্তিত থাকবে বলে জানান কুড়িগ্রাম কৃষি আবহাওয়া অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তুহিন আহমেদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *