বীরমুক্তিযোদ্ধা আবু তালেবের মৃতদেহ ডোবা থেকে উদ্ধার এলাকায় নানা গুঞ্জন

সরদার রইচ উদ্দিন টিপু জেলা প্রতিনিধিঃ নড়াইল

নড়াইলের কালিয়া উপজেলার নড়াগাতী থানার ইসলামপুর গ্রামের জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও বীর মু্িক্তযোদ্ধা শেখ আবু তালেবের (৭৫) রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বুুধবার (১৬ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে থানার গন্ধবাড়িয়া গ্রামের মোস্তাকের দোকানের পাশে ডোবা থেকে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় এলাকায় চলছে নানা গুঞ্জন। মুক্তিযোদ্ধা আবুতালেব ওই গ্রামের মৃত মোজাম শেখের ছেলে।
ঘটনা স্থল সংলগ্ন গন্ধবাড়ীয়া গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা লেয়াকত কাজীর স্ত্রী রাশিদা বেগম, বাদশা মিয়া শেখ ও মৃত আলাল শেখের স্ত্রী আলেয়া বেগমসহ অনেকে জানান, আবুতালেব শেখ গন্ধবাড়িয়া গ্রামে তাঁর ২য় স্ত্রীর কাছে থাকতেন। ওই দিন আছরের সময় আবুতালেব শেখকে বাজারের দিকে যেতে দেখে এবং অনেকের সাথে কথা হলে তিনি ডাক্তারের কাছে যাচ্ছেন বলে জানান। সন্ধ্যার দিকে হাদি ও আশরাফুল তার চাচা আবু তালেবকে পাওয়া যাচ্ছেনা বলে রাস্তা দিয়ে খুঁজতে থাকে। অতঃপর ওই এলাকার ৩০/৪০ জন লোক লাইট জালিয়ে আশেপাশের এলাকায় খোঁজাখুজি শুরু করে। অবশেষে রাত সাড়ে ১১টার দিকে হাদী ও আশরাফুল ওই এলাকার মোস্তাকের দোকানের দক্ষিন পাশের ডোবায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

শেখ আবু তালেবের পরিবারের সদস্যরা জানান, স্থানীয় মাদরাসা পরিচালনা কমিটির নির্বাচনে আবু তালেব সভাপতি প্রার্থী ছিলেন। ১৪ তারিখের নির্বাচনে বিপরীত প্যানেল ৩জন ও আবুতালেব শেখের প্যানেল ২ জন সদস্য নির্বাচিত হয়। বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার দিনক্ষণ নির্ধারণ ছিল।স্বজনরা জানায় নির্বাচিত সদস্য সংখ্যা আবু তালেবের পক্ষে বেশি হওয়ায় তিনি (আবু তালেব) সভাপতি হতেন। মাদরাসার আহবায়ক কমিটির সভাপতিও ছিলেন তিনি। এবার যাতে সভাপতি হতে না পারেন, সেজন্য প্রতিপক্ষরা তাকে হত্যা করতে পারে বলে জানান।

এ ঘটনায় নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের জানান, গতকাল আসরের নামাজের পর মোস্তর দোকানে চা খেয়ে তিনি নিখোঁজ হন। রাত সাড়ে ১১টার দিকে মোস্তর দোকানের পাশে ডোবায় তাঁর লাশ ভাসতে দেখা গেলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মৃতদেহ উদ্ধারপূর্বক সুরতহাল প্রতিবেদন করে মৃত্যুর সঠিক কারণ উদঘাটনের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। তবে মৃতদেহের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। পোষ্টমর্টেম রিপোর্ট আসার আগে নিয়মিত মামলা হবে, এবং রিপোর্ট হাতে পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *