যশোর বাসীর সাথে আমার নাড়ীর সম্পর্ক – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

মোঃ রমজান আলীঃ ক্রাইম রিপোর্টার

যশোর শামস-উল হুদা স্টেডিয়ামের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) দুপুর ২টা ৩৮ মিনিটে মঞ্চে উঠেই তিনি হাত নেড়ে জনসভায় উপস্থিত নেতাকর্মীদের শুভেচ্ছা জানান।এ সময় উচ্ছ্বসিত নেতাকর্মীরা স্লোগান দেন। প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, যশোরের মানুষের সাথে আমার একটা নারীর সম্পর্ক আছে যশোরে আমার নানা চাকরি করতেন সেই সুবাদে যশোরের মানুষের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছি আজো আমি, আমার নানার কবর দেওয়া যশোরে।প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো বলেন আমরা ক্ষমতায় এসে যশোর কে উন্নয়ন করেছি,যশোরে আইটি পার্ক করে দিয়েছি,যশোরে মেডিকেল কলেজ করে দিয়েছি,বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এর উন্নয়ন করেছি,যশোর বিমানবন্দর কে সম্প্রসারন করেছি,যশোরে শেখ জহুরুল হকের নামে যুব ট্রেনিং ইনস্টিটিউট করা হচ্ছে, অভয়নগরে ইপিজেড করা হচ্ছে, ভবদাহ প্রকল্প হাতে নিয়ে ১২৮ কিলোমিটার নদীপথ খনন করে যশোর থেকে খুলনা মোংলা পর্যন্ত নদীখনন কাজ চলমান,যশোর-খুলনা-কুষ্টিয়া,যশোর-খুলনা-বেনাপোল-মোংলা সড়কে জাতীয়করন করা হবে, যশোর মেডিকেল কলেজ কে ৫০০শয্যার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পরিনত করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী বক্তব্যে আরো বলেন, রিজার্ভের কোন সমস্যা নেই প্রতিটা ব্যাংকে যথেষ্ট টাকা আছে, বাংলাদেশের কোন মানুষ ভূমিহীন থাকবে না।অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, শেখ হেলাল উদ্দিন এম পি, কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, জাহাঙ্গীর কবির নানক, পীযূষ কান্তি ভট্টাচার্য, সদস্য আব্দুর রহমান, সালাউদ্দিন জুয়েল, আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম হানিফ,আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, মোজাম্মেল হক,আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, শেখ তন্ময় এমপি, মির্জা আজম এমপি, মোস্তফা জামাল মহিউদ্দিন, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, আমিরুল আলম এমপি, ইকবাল হোসেন টুকু শরীয়তপুর ১ এমপি, পারভিন জামান কল্পনা, গৌরিয়া সরকার ঝরনা, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সদর উদ্দিন খান, ঝিনাইদহ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টু, নড়াইল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজামুদ্দিন খান নিলু,কেন্দ্রীয় যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ,শেখ আফিল উদ্দিন এমপি, পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক ঢালী, সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য, যশোর ৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ,ঝিকরগাছা চৌগাছা সংসদ সদস্য নাছির উদ্দীন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য, যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আক্তার, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিন চাকলাদার। এদিকে সকাল থেকেই যশোরের বিভিন্ন উপজেলা ও ইউনিয়ন থেকে দলে দলে মিছিল নিয়ে জনসভাস্থলে আসেন নেতাকর্মীরা। এরপর বেলা ১১টার দিকে দেহ তল্লাশি করে একে একে নেতাকর্মীদের ঢোকানো হয় যশোর শামস-উল হুদা স্টেডিয়ামে। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে পরিপূর্ণ হয়ে যায় স্টেডিয়ামের মাঠ।এরপর স্টেডিয়ামের উত্তর দিকে রাজ্জাক কলেজ গেট দিয়ে নেতাকর্মীদের রাজ্জাক কলেজ মাঠে প্রবেশ করানো হয়। সেখানেও একে একে মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীদের বহর ঢুকলে সেই স্থানও পরিপূর্ণ হয়ে যায়। এখন স্টেডিয়াম এবং রাজ্জাক কলেজ মাঠ একেবারে পরিপূর্ণ। যদিও নেতাকর্মীদের উপস্থিতির ধারণা করেই আগেই স্টেডিয়াম এবং রাজ্জাক কলেজ মাঠ একত্রিত করা হয়।তবে স্টেডিয়াম এবং রাজ্জাক কলেজ মাঠ নেতাকর্মীদের পদচারণায় পরিপূর্ণ হওয়ায় পরে আসা নেতাকর্মীরা অবস্থান নিচ্ছেন যশোর ঈদগাহ ময়দান এবং টাউন হল মাঠে। সমাবেশ সরাসরি দেখাতে শহরজুড়ে ১০টি স্থানে মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর ও মনিটর স্থাপন করা হয়েছে। নেতাকর্মীদের জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে একাধিক টয়লেট। খাবার পানির জন্য একাধিক সাবমার্সিবল পাম্প বসানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *